1. abutalha6256@gmail.com : abdul kadir : abdul kadir
  2. abutalha625616@gmail.com : abu talha : abu talha
  3. asadkanaighat@gmail.com : Asad Ahmed : Asad Ahmed
  4. izharehaq24@gmail.com : mzakir :
সোমবার, ০৮ মার্চ ২০২১, ১১:৫১ পূর্বাহ্ন

কানাইঘাট স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের সেই অফিস সহকারি শামীমকে শাস্তি মূলক বদলী

কানাইঘাট প্রতিনিধি
  • প্রকাশটাইম: রবিবার, ৩১ জানুয়ারী, ২০২১

কানাইঘাট উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের বিভিন্ন খাতের টাকা ভূয়া বিল বাউচার সীল জালিয়াতির মাধ্যমে আত্মসাতের অভিযোগে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে অফিস সহকারি কাম-কম্পিউটার অপারেটর শামীম আহমদকে সুনামগঞ্জ জেলার ছাতক উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে শাস্তিমূলক বদলী করা হয়েছে।




গত ২৬ জানুয়ারি স্বাস্থ্য বিভাগের সিলেটের পরিচালক ডাঃ সুলতানা রাজিয়া স্মারক নং-প্রঃস্বাঃসিঃ/প্রশা-৪/২০২১ এর এক আদেশে শামীম আহমদকে বদলী প্রদান করেন। আদেশের ৮দিনের মধ্যে তাকে সুনামগঞ্জের ছাতক উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে যোগদানের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।




এদিকে কানাইঘাট স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের বিভিন্ন খাতের লক্ষ লক্ষ টাকা ভূয়া বিল বাউচার তৈরী করে আত্মসাতের সাথে জড়িত অফিস সহকারি শামীম আহমদের বদলীর আদেশে সন্তোষ প্রকাশ করেছেন তার বিরুদ্ধে সরকারের বিভিন্ন দফতরে দায়েরকৃত অভিযোগের বাদী কানাইঘাট বাজারের ব্যবসায়ী আব্দুল মান্নান সহ অভিযোগের সাক্ষী ও সচেতন মহল। আব্দুল মান্নান জানান শামীম আহমদকে বদলী করা হয়েছে যা জেনে আমি সন্তোষ্ট হয়েছি।




কিন্তু তার বিরুদ্ধে হাসপাতালের অর্থ আত্মসাৎ আমার ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ফাহিম এন্ড নাঈম রেস্টুরেন্টের মেমো ও সীল ও স্বাক্ষর জালিয়াতি করে সরকারের কোষাগার থেকে টাকা উত্তোলনের দায়ে স্বাস্থ্য বিভাগের সিলেটের পরিচালক ডাঃ সুলতানা রাজিয়ার কাছে দায়েরকৃত অভিযোগের আলোকে জেলা সিভিল সার্জন কর্তৃক তদন্ত জন সম্মুখে দ্রুত প্রকাশ করে শামীম আহমদের বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা গ্রহনের দাবী জানাচ্ছি। প্রসঙ্গত যে, হাসপাতালের ১৯-২০অর্থ বছরের বিভিন্ন খাতের লক্ষ লক্ষ টাকা ভূয়া বিল ভাউচার সীল স্বাক্ষর তৈরী করে আত্মসাতের অভিযোগ উঠে শামীম আহমদের বিরুদ্ধে।




যাহা তদন্তে প্রাথমিক ভাবে প্রমানীত হওয়ায় প্রায় দুই মাস পূর্বে হাসপাতালের তৎকালীন টিএইচও ডাঃ শেখ সরফুদ্দীন নাহিদকে শাস্তিমূলক ভাবে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর ঢাকায় বদলী করা হয়। কানাইঘাটের অনেক সচেতন মহল হাসপাতালের অর্থ আত্মসাতের সুষ্টু তদন্ত করে অফিস সহকারী শামীম আহমদ সহ এর সাথে জড়িতদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য সরকারের বিভিন্ন দপ্তরে লিখিত দরখাস্ত দায়ের করেন।




জানা গেছে জেলা সিভিল সার্জন কর্তৃক ৩ সদস্যের তদন্ত টিম আনীত এসব অভিযোগের সত্যতা পেয়ে অফিস সহকারী শামীম আহমদের বিরুদ্ধে প্রতিবেদন দেন জেলা সিভিল সার্জনের কাছে। যার কারনে শাস্তিমূলক ভাবে শামীম আহমদকে ছাতক উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে বদলী করা হয়।




কিন্তু এখনো পর্যন্ত অভিযোগের বাদী ব্যবসায়ী আব্দুল মান্নানকে তদন্ত রিপোর্টের কপি দেওয়া হয়নি বলে তিনি জানিয়েছেন। উল্লেখ্য যে, হাসপাতালের বিভিন্ন খাতের টাকা আত্মসাৎ ও অনিয়ম দূর্নীতি নিয়ে গণমাধ্যমে ধারাবাহিক ভাবে অনেক সংবাদ প্রকাশ হয়েছিল।

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর..
copyright 2020:
Theme Customized BY LatestNews