1. abutalha6256@gmail.com : abdul kadir : abdul kadir
  2. abutalha625616@gmail.com : abu talha : abu talha
  3. asadkanaighat@gmail.com : Asad Ahmed : Asad Ahmed
  4. izharehaq24@gmail.com : mzakir :
বুধবার, ২৮ জুলাই ২০২১, ০৩:০২ পূর্বাহ্ন

চাচা আপনা জান বাঁচা

মাওলানা আমিনুল ইসলাম কাসেমি
  • প্রকাশটাইম: বৃহস্পতিবার, ৮ এপ্রিল, ২০২১

ছাত্ররা চিরদিন ঢাল হিসাবে ব্যবহার হল। আর নেতারা তাদের শখ মেটাল। কেউ এমপি হয়ে,কেউবা মন্ত্রী। আবার বর্তমান সময়ে কেউবা রিফ্রেশমেন্টে চলে যান। এত্তগুলো নিরীহ তালেবুল ইলম মারা গেল, সেদিকে কোন ভ্রু্ক্ষেপ নেই। কোন মাথাব্যাথা নেই। মনে হয় না,দেশে কিছু হয়েছে।

নেতার কথায় জীবন দিল। তাঁর কথায় ময়দানে নেমে গেল। চার হাজারের উপরে কর্মি আহত হয়ে হসপিটালে। আবার কয়েকহাজার জেলখানায় বন্দী। এরকম একটা থমথমে অবস্হা। হেফাজতের কর্মিরা নির্ঘুম রাত কাটাচ্ছেন। এমনই এক মুহুর্তে যদি নেতাজী রিফ্রেশমেন্টে চলে যান, তাহলে এর থেকে দুঃখজনক আর কি হতে পারে?

আমি বেশ কিছুদিন আগে একটা নিবন্ধ লিখেছিলাম। অনেকে সেটা পড়েছিলেন। আমাদের দেশের নেতারা গা বাঁচানোর রাজনীতি করেন। মরবে সব কর্মিরা। আহত হবে- জেলখানায় যাবে সবই কর্মি, আর নেতা গা বাঁচিয়ে চলে যাবেন। এবার কিন্তু সেটা হাতে- নতে প্রমাণ হয়ে গেল। তবে এবার কাজটা তো আরো আপত্তিকর। একদম গরম গরম অবস্হায় নেতা দ্বিতীয় স্ত্রীকে নিয়ে অবকাশ যাপনে চলে গেলেন। তাও আবার এমন জায়গায়,যেখানে আলেম – উলামার যাওয়াটা বে- মানান।

দেখুন! আমি একশত ভাগ বিস্বাস করি, সঙ্গীনী তার একশত ভাগ হালাল। এব্যাপারে প্রথমদিন আমি সন্দেহ করি নি। এখনো করি না। আমার কথা হল, কর্মিদের গুলির নিচে ফেলে দিয়ে তিনি কেন অবকাশ যাপনে যাবেন? তার কি ঘরবাড়ি নেই? বা সেই স্ত্রীর কোন বাপের বাড়ী নেই? সেখানে গিয়ে উঠলে মানুষের মনে এত সন্দেহের দানা বাঁধতো না। কেউ কিছু বলার সাহস রাখতো না। কিন্তু তিনি মানুষের মনে সন্দেহ সৃষ্টি করে দিলেন। বিরোধীদের কথা বলার সুযোগ করে দিলেন। এটা কি ছেলে – খেলা নয়?

অনেকে বলেন, ভাই এগুলো লেখার এখন দরকার নেই।তাহলে কবে লিখবেন? ইতিপুর্বে লিখেছিলাম, নেতাজীর নিরাপত্তার ব্যবস্হা থাকা উচিত। তিনি একাকী না চলেন। কিন্তু তিনি একাকী ঘুরে বেড়াচ্ছেন। এবং সেই একাকী ঘুরতে গিয়েই অপমানিত হলেন।

অথচ গতকাল রাত জেগে কর্মিরা পাহারা দিয়েছে। কেউ বলে ঘুমায় নি। কিন্তু এই রাত জাগাটা,এই পাহারাদারীটা আগে করার দরকার ছিল। চোখে আঙ্গুল দিয়ে দেখানো হয়েছে। কিন্তু তখন এটাকে গুরুত্ব দেওয়া হয়নি। বরং আমরা যারা এসব বিষয় নিয়ে লেখালিখি করি, আমাদের দুশমুন মনে করা হয়। তবে এমন সময় বোধোদয় ঘটেছে, যখন আর মলম লাগানোর জায়গা নেই।

আচ্ছা বলুন তো, অপমানিত তিনি একা হয়েছেন নাকি পুরো আলেম সমাজকে অপমানিত করেছেন? তিনি নিজে প্রশ্নবিদ্ধ নাকি হেফাজতটা প্রশ্নবিদ্ধ? তিনি অবশ্যই আলেম সমাজ এবং হেফাজতের মত মোবারক সংগঠনকে প্রশ্ন বিদ্ধ করেছেন। যার কারণে মানুষ হেফাজতের প্রতি ভিন্ন দৃষ্টিতে তাকাচ্ছে।

যেখানে এক কুড়ি প্রাণ ঝরে গেল। হেফাজতের আন্দোলন থাকবে এখন তুঙ্গে। শহীদ ভাইদের ক্ষতিপুরণ আদায়ে আমরা থাকব সোচ্চার। বন্দীদের মুক্ত করার জন্য রাজপথ কাঁপাব। সেখানে হেফাজতের অবস্হা, ” চাচা আপনা জান বাঁচা”। হেফাজতের অস্তিত্ব সংকট দেখা দিয়েছে।নেতারা এখন ব্রিফিং দেয়, নেতাজীর বউ ১০০ ভাগ সঠিক এই সম্পর্কীয় তথ্য দেয় তারা। এসব ব্রিফিং এখন নেতারা কেন দিবেন? এখন কি ঐগুলো ব্রিফিং দেওয়ার সময়?

একজন ব্যক্তি নিয়ে সংগঠন নয়।কোন ব্যক্তি বিশেষের উপর ভর করে সংগঠন চলে না। সংগঠন নিজ গতিতে চলতে থাকবে। কারো যদি নিজ বোকামীতে পদস্খলন হয়, তার জন্য তো সংগঠন দায়ী নয়।

মানে নেতাজীর খেয়ালখুশি, দায়িত্ব- জ্ঞানহীন কর্ম- কান্ডে হেফাজত তার আসল উদ্দেশ্য থেকে ব্যাকফুটে চলে আসছে। এখন আর হেফাজতের কর্মসুচি দেওয়া সম্ভব হচ্ছে না। এখন শুধু নেতার ইমেজ রক্ষা করার চেষ্টা।

আমি নেতাজীর অকল্যাণ চাই না। আশাকরি তিনি তার ভুলত্রুটিগুলো শুধরিয়ে সামনে চলবেন। এই সব অনাকাংখিত ঘটনাবলী থেকে শিক্ষা নিয়ে সামনে চলবেন। যাতে ব্যক্তি নির্ভরশীল কেউ না হয়ে পড়ে।

নেতৃত্ব সংকটের কথা আগে একবার লিখে ছিলাম। কিন্তু আমরা কেউ বিস্বাস করতে চাই না। নেতাজী এত্ত বড় ভুল করল, সেটাও কেউ মানতে চায় না। বরং এগুলো লিখলে নেতার অন্ধ ভক্তরা তেড়ে আসেন। আর এমন বিচ্ছিরি ভাষা ব্যবহার করেন,যেটা বলে বোঝানো যাবে না।
আচ্ছা, ভুল যদি না ধরে দেন তাহলে কিন্তু আরো বেপরোয়া উঠবে। মানুষকে আর মানুষ মনে করবেনা। আগে একদিন লিখেছিলাম, আত্মসমালোচনার পথ খোলা রাখুন। নিজের কি ভুলত্রুটি হচ্ছে, সেটা নিয়ে আলোচনা – পর্যালোচনা করার প্রয়োজন রয়েছে। যারা শোধরানোর জন্য সমালোচনা করে, তাদের সাধুবাদ জানানো চাই।

নিজের মধ্যে ধৈর্যচ্যুতি যেন না ঘটে। নেতা হতে হলে মানুষের কথা অবশ্যই শুনতে হবে। সব কিছু শুনে সামনে বাড়তে হবে। এটাই নিয়ম।

আল্লাহ আমাদের উপর রহম করুন। আমিন।

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর..
copyright 2020:
Theme Customized BY MD MARUF ZAKIR