1. abutalha6256@gmail.com : abdul kadir : abdul kadir
  2. abutalha625616@gmail.com : abu talha : abu talha
  3. asadkanaighat@gmail.com : Asad Ahmed : Asad Ahmed
  4. izharehaq24@gmail.com : mzakir :
মঙ্গলবার, ২২ জুন ২০২১, ১০:৫৭ অপরাহ্ন

হারাম খাদ্য পরিবারে মারাত্মক প্রভাব ফেলে সৈয়দ মবনু

সৈয়দ মবনু
  • প্রকাশটাইম: সোমবার, ১৭ মে, ২০২১

বিলাত প্রবাসী এক বাবা একদিন অভিযোগ করে বললেন, অমুক মাত্র কিছুদিন আগে গেলো লন্ডন, এখন প্রচুর টাকার মালিক। আমার ছেলেরা বিলাতে বিগত ত্রিশ বছর থেকে বসবাস করেও কিছু করতে পারলো না। আমি দুজন সম্পর্কেই জানি। ভদ্রলোককে বললাম, চাচা আপনি কি চান আপনার ছেলেও অমুকের মতো টাকার মালিক হোক? তিনি বললেন, টাকার জন্য তো বিলাত গেলো, টাকা রুজি না চাওয়ার কারণ কী?
আমি বললাম, অনেকগুলো কারণ আছে। যেমন:

১. আপনার ছেলে হালাল-হারামের মাসআলা জানে এবং মানে। ঐ ভদ্রলোক হয়তো জানে কিংবা জানে না, তবে মানে না যে তা শতভাগ সত্য। সে বিভিন্নভাবে টাকা উপর্জন করে, হালাল-হারামের প্রতি দৃষ্টিপাত করেই না। আপনার ছেলে হালাল-হারাম মেনে পা ফেলে।




২. সুদ হারাম এটা সবাই জানে। অমুসলিমও সুদকে ঘৃণা করে। কিন্তু সুদের নতুন নাম মর্গেজ, লউন ইত্যাদিও যে হারাম তা আপনার ছেলে মানে কিন্তু ওনি মানেন না। মর্গেজে একের পর এক ঘর করছেন, ব্যবসা করছেন।




৩. আপনার ছেলে জানে এতটুকু ধন হলে জাকাত দেওয়া ফরজ এবং সে যাকাত দিয়েও থাকে। কিন্তু তিনি এত সম্পদের মালিক হলেও যাকাত দেন না। বললে বলেন, আমার উপর তো জাকাত ফরজ না, কারণ আমি ব্যাংকের কাছে ঋণগ্রস্ত।

৪. আপনার ছেলে মা-বাবার সুখ-শান্তির প্রতি নজর রাখে, অমুকের সেই সময়ই নেই।




৫. আপনার ছেলে জানে যে কারো কাছ থেকে মিথ্যা বলে টাকা নিলে পাপ হয়, হোক সে মুসলিম কিংবা অমুসলিম, হোক জনগণ কিংবা সরকার। তাই সে মিথ্যা বলে কোথাও থেকে টাকা আনেনা। আর অমুক মিথ্যা বলে ব্যক্তি, প্রতিষ্ঠান, সরকার থেকে টাকা আনে।




আরও আছে। এখন বলুন, আপনি কি মনে করেন আপনার ছেলে থেকে অমুক বেশি কিছু করতে পেরেছে? আপনি কি চান আপনার ছেলেও অমুকের মতো হারাম উপার্জন করে ধন জমা করুক? তিনি চুপ হয়েগেলেন।
আমি বললাম, আপনি কি জানেন আপনার ছেলে এবং অমুকের মধ্যে জীবনে সবচে’ লাভবান কে? তিনি বললেন, বুঝতে পারছি না। আমি বললাম, শুনেন, হারাম টাকায় সুখ নেই। আপনি তাদের দুজনের পারিবারিক জীবনের অবস্থা মিলিয়ে দেখুন দেখবেন কে লাভবান। আপনার ছেলে বউয়ের উপর আপনার কি কোন অভিযোগ আছে? বললেন, না। সে তো সোনার মানুষ। বললাম, অমুকের বউ? বললেন, আমাকে গিবতের পাপে নিয়ে যেও না। আল্লাহ মাফ করুন। সবচে বড় কথা তাদের স্বামী স্ত্রীর মধ্যেই তো মিল নেই। আপনার নাতি-নাতনির অবস্থা আর তাদের অবস্থার ব্যবধান কী? বললেন, অমুকের বাচ্চারাতো মানুষ হচ্ছে না। বললাম, আল্লাহ সবাইকে হারাম খাদ্য থেকে রক্ষা করুন। হারাম খাদ্য পরিবারে বড় প্রভাব ফেলে।

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর..
copyright 2020:
Theme Customized BY MD MARUF ZAKIR