1. abutalharayhan@gmail.com : Abu Talha Rayhan : Abu Talha Rayhan
  2. asadkanaighat@gmail.com : Asad kg : Asad kg
  3. junayedshamsi30@gmail.com : Mohammad Junayed Shamsi : Mohammad Junayed Shamsi
  4. sufianhamidi40@gmail.com : Sufian Hamidi : Sufian Hamidi
  5. izharehaque0@gmail.com : ইজহারে হক ডেস্ক: :
  6. rashidahmed25385@gmail.com : Rashid Ahmad : Rashid Ahmad
  7. sharifuddin000000@gmail.com : Sharif Uddin : Sharif Uddin
  8. Yeahyeasohid286026@gmail.com : Yeahyea Sohid : Yeahyea Sohid
বুধবার, ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০১:৪৭ পূর্বাহ্ন

লা-মাযাহাবি সমাচার

রিপোর্টারের নাম:
  • আপডেট টাইম : রবিবার, ২১ জুন, ২০২০

মাওলানা আবদুল আজীজ মাহবুব::
যারা লামাযহাবি মতবাদকে গভীরভাবে অনুধাবন করতে পারেনি, তারাই উদারতা এবং কথিত ঐক্যের দোহাই দিয়ে লামাযহাবী মতবাদের খণ্ডন করতে বাধা দেয়!দালীলিকভাবে লামাযহাবীদের খণ্ডন করলে কওমী পড়ুয়া কিছু কথিত উদারপন্থী এসে বলবে, ভাই এসব বাদ দেন, এসব বললে উম্মাহর মধ্যে ফাটল ধরবে, অন্য বিষয় নিয়ে কথা বলেন।
ওরা লামাযহাবী মতবাদ বলতে বুঝে শুধুমাত্র রফয়ে ইয়াদাইন করা আর জোরে আমীন বলাকে!এজন্য উদারতার সবক দিতে বলে, এসব তো অন্য মাযহাবেও আছে! এগুলো বলে লাভ নাই।এসব ফিকহী ইখতিলাফ।




লামাযহাবী মতবাদ মুসলিম উম্মাহর জন্য কত বিপজ্জনক সেটি অনুধাবন করতে পেরেছিলেন পাহাড়সম ইলমের অধিকারী মনীষীরা।অনুধাবন করতে পেরেছিলেন ইমাম যাহেদ ইবনুল হাসান কাওসারী রাহিমাহুল্লাহ। তিনি এই মতবাদের খণ্ডন এবং জাতিকে এর ভয়াবহতা বুঝাতে গুরুত্বপূর্ণ গ্রন্থ লিখে গেছেন।তাঁর রচিত গ্রন্থের নাম হলো,
اللامذهبية قنطرة اللادينية
(মাযহাব ত্যাগের শেষ পরিণাম ইসলাম ত্যাগ)
লামাযহাবী মতবাদকে ভালোভাবে অনুধাবন করতে পেরেছিলেন আল্লামা সাঈদ রমাযান আল বুতী রাহিমাহুল্লাহ। তিনিও একটি গুরুত্বপূর্ণ গ্রন্থ লিখে এই মতবাদ সম্পর্কে জাতিকে সতর্ক করে গেছেন। তাঁর রচিত গ্রন্থের নাম হলো,
اللامذهبية أخطر بدعة تهدد الشريعة الإسلامية
(মাযহাব ত্যাগ এমন একটি বেদআত যা ইসলামী শরিয়াহকে ধ্বংস করে দেয়)




লামাযহাবী মতবাদের সমস্যা শুধু শাখাগত বিষয়ে না। এই মতবাদের সমস্যা হলো গোড়ায়। ওদের সমস্যা আকীদায়, ওদের সমস্যা হলো বিচ্ছিন্ন মত বেছে বেছে অনুসরণে! ওদের সমস্যা হলো সালাফকে গালিগালাজ করাতে ওরা উমর রা. এর মতো সাহাবীকে বেদআতী বলে! হযরত উসমান রা. কে বেদআতী বলে! ইমামদের সমালোচনা করে! ইমামদের শানে কটুক্তি করে!কুরআন হাদিস বুঝার ক্ষেত্রে সালাফের বুঝের উপর নিজের বুঝকে প্রাধান্য দেয়! ভুল ও মনগড়া ফতোয়া দিয়ে ইসলামী শরিয়াহকে খেল-তামাশার বস্তু বানিয়ে ফেলা ইত্যাদি হলো এই মতবাদের গোড়ার সমস্যা।মোটকথা শায ও বিচ্ছিন্ন মতের সমন্বয়ে গঠিত মতাদর্শের নাম হলো, লামাযহাবী মতবাদ।




দলিলভিত্তিক ইলমী খণ্ডন করলে যারা উদারতা আর কথিত ঐক্যের বুলি শুনায়, তাদের উদ্দেশ্যে বলব, মাযহাব হলো ঐক্যের প্রতীক।চৌদ্দশো বছরের ইতিহাসে মাযহাব ঐক্যের প্রতীক হিসেবেই ছিল। যারা চৌদ্দশো বছর পরে এসে মাযহাবের বিরোধিতা করছে তারাই মূলত ঐক্যের পথে অন্তরায়।তারাই ঐক্য বিনষ্ট করেছে! ঐক্যের নাম নিয়ে মাযহাবের বিরোধিতা করে শুধু বাংলাদেশেই লামাযহাবীরা ষাটটির বেশি দলে বিভক্ত।পাশাপাশি ওরা এক দল আরেক দলকে গোমরাহ বলে! কখনো আগ বাড়িয়ে কাফেরও বলে ফেলে! ফাইন্নালিল্লাহ!
আল্লাহ্ তা’আলা মাযহাব বিরোধিতাকারীদের হেদায়াত দিন। আমীন।

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..
© All rights reserved © 2020 Izharehaq.com
Theme Customized BY Md Maruf Zakir