1. abutalharayhan@gmail.com : Abu Talha Rayhan : Abu Talha Rayhan
  2. asadkanaighat@gmail.com : Asad kg : Asad kg
  3. junayedshamsi30@gmail.com : Mohammad Junayed Shamsi : Mohammad Junayed Shamsi
  4. sufianhamidi40@gmail.com : Sufian Hamidi : Sufian Hamidi
  5. izharehaque0@gmail.com : ইজহারে হক ডেস্ক: :
  6. rashidahmed25385@gmail.com : Rashid Ahmad : Rashid Ahmad
  7. sharifuddin000000@gmail.com : Sharif Uddin : Sharif Uddin
  8. Yeahyeasohid286026@gmail.com : Yeahyea Sohid : Yeahyea Sohid
  9. zahidnahid68@gmail.com : Hafiz Zahid : Hafiz Zahid
মঙ্গলবার, ২৪ নভেম্বর ২০২০, ০৬:৩৮ পূর্বাহ্ন

পরিবারের কাছে আধুনিক মোবাইল ফোনের দাবি : না পেয়ে আত্মহত্যা করেছে দুই কিশোর-কিশোরী

নিজস্ব প্রতিবেদক
  • আপডেট টাইম : সোমবার, ৭ সেপ্টেম্বর, ২০২০

কোভিড-১৯ করোনা পরিস্থিতে টিভিতে বা মোবাইলে ভার্চুয়ালি ক্লাস চলছে শিক্ষার্থীদের।এ সুযোগে মাতা-পিতার কাছে দামি মোবাইল কিনে দেবার দাবি করছে শিক্ষার্থীরা।সামর্থহীন বাবা-মা মোবাইল কিনে না দিলে নিজেদেরকে তিলে তিলে ক্ষয় করছে শিক্ষার্থীরা।একপর্যায়ে কেউ কেউ আত্মহত্যা করতেও দ্বিধা করছে না।বিনা দোষেই নিজের জীবনকে শেষ করে দিচ্ছে।এমই এক ঘটনা ঘটেছে বাগেরহাট জেলার চিতলমারী উপজেলায়।মাত্র দশদিনের ব্যবধানে দুই শিক্ষার্থী কিশোর-কিশোরী আত্মহত্যা করেছে।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানাগেছে,আধুনিক সুবিধা আছে এমন মোবাইল পরিবারের কাছে দাবি করেছিল শয়ন নামের এক ছেলে।পরিবারের সামর্থ না থাকায় শয়নের আবদার মেটাতে তার পারেনি বাবা-মা।
একপর্যায়ে শয়ন গেল ৩১ আগস্ট তার বাবার পরনের থান কাপড় গলায় পেঁচিয়ে বসতঘরের আড়ায় ঝুলে আত্মহত্যা করে।শয়ন
উপজেলার চিতলমারী সরকারি এসএম মডেল মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণির ছাত্র।

এর আগে একই ভাবে আধুনিক মোবাইল ফোন না পেয়ে অভিমানে আত্মহত্যা করেছে একই উপজেলার নবম শ্রেণির ছাত্রী নিপা মজুমদার (১৫)।

এ ব্যাপারে চিতলমারী থানা পরিদর্শক (ওসি) মীর শরিফুল হক বলেন, বৈশ্বয়িক মহামারী কোভিড-১৯ করোনা পরিস্থিতিতে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকায় চঞ্চলমতি কিশোর-কিশোরীরা বাড়িতে একাকিত্ব ফিল করছে। তাদের অনেকে ইন্টারনেটের মাধ্যমে নিজেদের লেখাপড়া চালিয়ে যেতে চায় । ফলে আধুনিক মোবাইল ফোনের প্রয়োজনীয়তা তীব্র হয়ে ওঠে।
ওসি শরিফুল আরো বলেন, কিশোর-কিশোরীরা পরিবারের কাছে তাদের প্রয়োজনের কথা জানায়। না পেলে মনে রাগ, অভিমানের সৃষ্টি হয়। যা হয়তো ঝগড়াতেও রূপ নেয়। আবেগ নিয়ন্ত্রণ করতে না পেরে তারা আত্মহত্যা করে। ভবিষ্যতের অনিশ্চয়তা থেকে মানুষের মনে অপরাধ প্রবণতা সৃষ্টি হয়। আত্মহত্যা করা অপরাধ। এটি মনে রেখে সবাইকে ধৈর্য ধারণ করতে হবে।

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..
© All rights reserved © 2020 Izharehaq.com
Theme Customized BY Md Maruf Zakir