1. abutalharayhan@gmail.com : Abu Talha Rayhan : Abu Talha Rayhan
  2. asadkanaighat@gmail.com : Asad kg : Asad kg
  3. junayedshamsi30@gmail.com : Mohammad Junayed Shamsi : Mohammad Junayed Shamsi
  4. sufianhamidi40@gmail.com : Sufian Hamidi : Sufian Hamidi
  5. izharehaque0@gmail.com : ইজহারে হক ডেস্ক: :
  6. rashidahmed25385@gmail.com : Rashid Ahmad : Rashid Ahmad
  7. sharifuddin000000@gmail.com : Sharif Uddin : Sharif Uddin
  8. Yeahyeasohid286026@gmail.com : Yeahyea Sohid : Yeahyea Sohid
  9. zahidnahid68@gmail.com : Hafiz Zahid : Hafiz Zahid
সোমবার, ২৬ অক্টোবর ২০২০, ০৭:৫১ পূর্বাহ্ন

কার হবে হেফাজত, বেফাক ও হাইয়া?

আসিফ মোহাম্মদ
  • আপডেট টাইম : সোমবার, ২১ সেপ্টেম্বর, ২০২০

 

বাংলাদেশের সর্বজন শ্রদ্ধেয় আলেম আল্লামা শাহ আহমদ শফী রহ. এর মৃত্যুর পর বর্তমানে অরাজনৈতিক সংগঠন হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশের আমীর কে হবেন, তা নিয়ে বিভিন্ন মহলে আলোচনা-সমালোচনা শুরু হয়েছে। কারণ আল্লামা শফীর মৃত্যুতে অপূরণীয় ক্ষতি এবং বড় ধরনের শূন্যতার সৃষ্টি হয়েছে হেফাজতে ইসলামে। চট্রগ্রাম নাকি রাজধানী ঢাকা থেকে হেফাজতে আমীর নির্বাচিত হবেন, তা নিয়ে সংগঠনের ভেতরে চলতে হরেকরকম জল্পনা-কল্পনা।

বাংলাদেশের সাধারণ মানুষ ও উলামায়ে কেরামের অনেকের চোখ এখন এইদিকে। কেউ কেউ বলছেন, বর্তমান মহাসচিব মাওলানা জুনাইদ বাবুনগরীকে হেফাজতের নতুন আমির নির্বাচিত হোক। এছাড়াও আলোচনায় আছেন হেফাজতের কেন্দ্রীয় সহসভাপতি মাওলানা তাজুল ইসলাম, জমিয়ত নেতা মুফতি মোহাম্মদ ওয়াক্কাস।

তবে আমার মনে হয় রাজধানীর বারিধারা মাদরাসার মুহতামিম মাওলানা নূর হোসাইন কাসেমী দা.বা. কে হেফাজতে ইসলামের আমীর নির্বাচিত করা হলে সবচেয়ে ভালো হয়। তিনি বর্তমানে এই পদের সর্বোচ্চ যোগ্য ব্যক্তি। কারণ আমাদের কওমি অঙ্গনের সমাজ ও রাজনীতিতে গত কয়েক বছরের সংঘটিত ঘটনাবলি ও প্রবণতা নিবিড়ভাবে পর্যবেক্ষণ করলে দেখা যায় সর্বক্ষেত্রে মাওলানা নূর হোসাইন কাসেমী দা.বা. এর অবদান অনেক বেশি।

মাওলানা নূর হোসাইন কাসেমী দা.বা. বিশ্বের প্রবীণ উলামায়ে কেরামের মধ্যে অসামান্য ব্যক্তিদের অন্যতম। সেই সাথে তিনি একজন বড় মাপের রাজনৈতিক নেতা হিসেবে পরিচিত। তিনি বর্তমানে জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম বাংলাদেশ মহাসচিব পদে আছেন এবং বিএনপি এর চেয়ারম্যান ও সকল নেতৃবন্দের সাথে তার সুসম্পর্ক বিদ্যমান। আবার প্রয়োজনে হলে বর্তমান সরকারের সাথে লিয়াজু করে চলবেন। কওমি অঙ্গনের যে কোন ব্যক্তি, রাজনীতিক ও দেশপ্রেমিকের চেয়ে তাঁর ব্যতিক্রমধর্মী বৈশিষ্ট্য হলো, তিনি দৃঢ়প্রত্যয়ী। যাকে আমরা বলতে পারি নিজ বিশ্বাসের প্রতি বিশ্বস্ত, সংশপ্তক।

মাওলানা নূর হোসাইন কাসেমী দা.বা. কে হেফাজতে ইসলামের আমীর নির্বাচিত করা হলে আল্লামা শফীর মৃত্যুতে যে অপূরণীয় ক্ষতি ও শূন্যতার সৃষ্টি হয়েছে তা কিছুটা দূর হবে বলে আশা করি। কারণ তিনি তার প্রজ্ঞা, বিচক্ষণতা, ধীশক্তির মাধ্যমে এই উম্মাহকে সঠিক পথের দিশা দেবেন, ফেতনা ফাসাদ থেকে মুক্ত রাখবেন। ইসলাম ও মুসলমানদের প্রয়োজনে বিএনপি কে ছেড়ে বর্তমান সরকার আওয়ামীলীগের সাথে লিয়াজু করবেন। যদিও তিনি বিএনপি, জামাত-শিবিরের পেয়ারা, তবু যে কোন প্রয়োজনে আওয়ামীলীগের সাথে আত্মার সম্পর্ক গড়ে তুলতে তাঁর সময় লাগবে না।

মাওলানা নূর হোসাইন কাসেমী দা.বা. এর মধ্যে আমি পাকিস্তানের জমিয়তে উলামায়ে ইসলামের চেয়ারম্যান মাওলানা ফজলুর রাহমনের মিল খুঁজে পাই। তিনি হেফাজতের আমীর হলে মুসলিম বিশ্বের রাজনীতিতে বেশ আলোচিত হয়ে ওঠবেন। তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়েপ এরদোগান, পাকিস্তানের প্রেসিডন্ট ইমরান খানসহ বিশ্বের মুসলিম রাজনৈতিক ব্যক্তিদের সাথে বাংলাদেশের সম্পর্ক নিবিড় হবে। এতে করে বাংলাদেশের মুসলিমদের বহু ফায়দাও হাসিল হবে।

২.

একই সঙ্গে আল্লামা শাহ আহমদ শফীর মৃত্যুতে কওমি মাদ্রাসা শিক্ষাবোর্ড ‘বেফাকুল মাদারিসিল আরাবিয়া বাংলাদেশ’ (বেফাক) এর চেয়ারম্যান ও কওমি মাদ্রাসার সম্মিলিত শিক্ষা সংস্থা আল-হাইয়াতুল উলইয়া লিল জামিয়াতিল কওমিয়া বাংলাদেশ এর চেয়ারম্যান পদে শূন্যতার সৃষ্টি হয়েছে। এই দুটি পদে এমন একজন ব্যক্তিকে নিযুক্ত করা হোক, রাজনীতির সাথে যার কোন সম্পর্ক নেই, যিনি রাজনীতি থেকে মুক্ত। সাথে সাথে পরিবার তন্ত্র থেকেও মুক্ত এবং নিজ পায়ে চলেফেরা করতে পারেন, হুইলচেয়ার টানার প্রয়োজন হয় না। পাশাপাশি ইলম, আমল ও আধ্যাত্মিকতা অনন্য। আহসানি তাকবিম এর প্রতিচ্ছবি।

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..
© All rights reserved © 2020 Izharehaq.com
Theme Customized BY Md Maruf Zakir