1. abutalharayhan@gmail.com : Abu Talha Rayhan : Abu Talha Rayhan
  2. asadkanaighat@gmail.com : Asad kg : Asad kg
  3. junayedshamsi30@gmail.com : Mohammad Junayed Shamsi : Mohammad Junayed Shamsi
  4. sufianhamidi40@gmail.com : Sufian Hamidi : Sufian Hamidi
  5. izharehaque0@gmail.com : ইজহারে হক ডেস্ক: :
  6. rashidahmed25385@gmail.com : Rashid Ahmad : Rashid Ahmad
  7. sharifuddin000000@gmail.com : Sharif Uddin : Sharif Uddin
  8. Yeahyeasohid286026@gmail.com : Yeahyea Sohid : Yeahyea Sohid
  9. zahidnahid68@gmail.com : Hafiz Zahid : Hafiz Zahid
বুধবার, ২৮ অক্টোবর ২০২০, ১১:৩১ অপরাহ্ন

মুফতী ওক্কাস এখনো অনন্য

আমিনুল ইসলাম কাসেমি
  • আপডেট টাইম : রবিবার, ১৮ অক্টোবর, ২০২০

বড় গর্বের বিষয়। বেফাকের নির্বাচনে যিনি প্রধান নির্বাচন কমিশনারের ভূমিকা পালন করেছেন, তিনি আর কেউ নয়। তিনি আমাদের অহংকার। আলেম সমাজের গর্ব , তিনি হলেন মুফতী ওয়াক্কাস।
আমি অবাক হলাম, তিনি এখনো ফুরিয়ে যান নি। তাঁর গ্রহণযোগ্যতা, তাঁর ব্যক্তিত্ব, তাঁর প্রতি আলেম সমাজের আস্থা এখনো বিদ্যমান।





মুফতী ওয়াক্কাস সাহেবের সহকারী হিসেবে আরো ছিলেন, আল্লামা নুরুল ইসলাম ওলীপুরী, আল্লামা জাফর আহমাদ ঢালকানগরী।
অনেকেই মুফতী ওয়াক্কাস সাহেবের এমন ইজ্জত সন্মানে সন্তোষ প্রকাশ করেছেন। এবং তাঁর নির্বাচন পরিচালনা এবং দক্ষতায় আভিভূত হয়েছেন।

মুফতী ওয়াক্কাস বাংলাদেশের আলেমদের মধ্যমণি। একটি নাম, একটি সংগ্রাম, একটি ইতিহাস। এদেশের টেকনাফ থেকে তেঁতুলিয়া, রুপসা থেকে পাথুরিয়া,সুন্দরবন থেকে বান্দরবন, সর্বস্তরের মানুষের প্রিয় ব্যক্তিত্ব। যেমন তুখোড় আলেম তিনি আবার বলিষ্ঠ রাজনীতিবীদ।




মুফতী ওয়াক্কাস সাহেব কত বড় আলেম সেটা আমার মত মানুষের দ্বারা বর্ণনা করা সম্ভব নয়। তাঁকে চিনতেন শায়খুল হাদীস আল্লামা আজিজুল হক রহ, চিনতেন মুফতি আমিনী সাহেব রহ, তাকে চিনতেন, সিলেটের আল্লামা তাজাম্মুল আলী সাহেব রহ, (খলীফায়ে মাদানী)। মুফতী ওয়াক্কাস সাহেবকে ভালো ভাবে চিনতেন, আল্লামা কাজী মু’তাসিম বিল্লাহ রহ,।

শায়খুল হাদীস রহ, এবং আমিনী রহ, তাঁরা মুফতী ওয়াক্কাস সাহেবের ভুয়সী প্রসংসা করতেন। তাঁর মত আলেম বাংলাদেশে বিরল, এ কথাও বলতেন।

আসলে মুফতী ওয়াক্কাস সাহেব এমন কিছু মানুষের সোহবাত পেয়েছেন, যার কারণে তিনি সেই মহান ব্যক্তিদের সংস্পর্শে থেকে নিজেকে অনন্য উচ্চতায় নিতে সক্ষম হয়েছেন।




কুতুবুল আলম সাইয়্যেদ হুসাইন আহমাদ মাদানী রহ, এর বিশিষ্ট খলিফা, প্রখ্যাত আলেমেদ্বীন তাজাম্মুল আলী সিলেটী ( লাউড়ীর হুজুর) এর সোহবাত পেয়েছেন মুফতী ওয়াক্কাস সাহেব। এমনি ভাবে মাদানী রহ, এর আরেক শাগরেদ, যুগ শ্রেষ্ঠ মুহাদ্দিস, আল্লামা কাজী মু’তাসিম বিল্লাহ রহ,এর সোহবত লাভ করেছিলেন। এমন ব্যক্তিগণের সংস্পর্শ গ্রহন করে তিনি নিজেকে তৈরী করেছেন। বিশেষ করে লাউড়ীর হুজুরের নেক নজর মুফতী ওয়াক্কাস সাহেব অনেক উর্ধে পৌছেছেন।

ইলমী যোগ্যতা মুফতী সাহেবের ঈর্ষনীয় পর্যায়ের। দেখতে সাধাসিধে। চলনে সাদামাটা। কিন্তু তাঁর ইলমী মাকাম, তাঁর প্রজ্ঞা, জ্ঞানের গভীরতা, অকল্পনীয়।
ছাত্র জীবন থেকেই অসম্ভব মেধা, ধী- শক্তির অধিকারী। প্রত্যেক ফন এর উপর তিনি মাহারাত হাসিল করেছেন।




তুখোড় মুহাদ্দিস। একজন মুহাদ্দিসের যত গুণ থাকার প্রয়োজন, সব গুণ সন্নিবিশিত হয়েছে তাঁর মধ্যে। বুখারী শরীফের দরস দিচ্ছেন যুগের পর যুগ। যার সুনাম সব জায়গাতে।

রাজনৈতিক নেতা হিসেবে মুফতী ওয়াক্কাস আজো বে-মেছাল। তাঁর মত রাজনীতি বোঝা লোক রাজনৈতিক অঙ্গনে খুব কম পাওয়া যাবে। দীর্ঘ রাজনৈতিক জীবনে বহু ত্যাগ- তিতিক্ষা, কোরবানী দিয়ে চলেছেন। বারবার তিনি চাপের মধ্যে পড়েছেন। তবুও পিছপা হন নি।

আপোসহীন রাজনীতিবিদ। মিথ্যের সাথে কোন আপোস নেই। যার কারণে তিনি কারাবরণ করেছিলেন। কারার অন্ধকার প্রকষ্ঠে থেকেছেন, তবুও তিনি হকের উপর অটল – অবিচল।




মুফতী ওয়াক্কাস বেশ কয়েকবার এমপি, মন্ত্রী, সংসদের হুইপ ছিলেন। নির্ভেজাল ছিলেন তিনি। কোন ঝামেলায় তিনি যান নি। ফ্রেশ ভাবে তাঁর কার্যক্রম চালিয়েছেন।
তাঁর এই রাজনীতিতে চলার পথেও তিনি নিজের উস্তাদ এবং মুরুব্বীদের ভুলে যান নি কখনো। ভুলে যান নি, আলেমদের। স্বীয় শায়েখ – মুরশিদের পরামর্শ ক্রমে তাঁর রাজনীতি চলেছে। যখন নির্বাচনে দাঁড়িয়েছিলেন,সেটাও তখন প্রিয় মুরুব্বীদের পরামর্শে। আবার সেই সময়ের সরকারে যোগদান করেছিলেন,সেটাও মুরুব্বীদের অনুমতি নিয়ে।




মুফতী ওয়াক্কাস সাহেব মন্ত্রী সভাতে গিয়ে কিন্তু আলেমদের ভোলেন নি। কওমী মাদ্রাসা তথা ওলামায়ে দেওবন্দের সাথে তায়াল্লুক রেখেছেন। দেশের কওমী মাদ্রাসাগুলোতে বারবার সফর করেছেন। সকল আলেমদের সাথে সু-সম্পর্ক গড়ে তুলেছেন।




মুফতী ওয়াক্কাস সাহেব যখন মন্ত্রী, তখন আমরা ছোট। যশোর জামেয়া কাসেমিয়াতে মিজান জামাতে পড়ি। তবে সেই মন্ত্রী থাকাকালিন একটা স্মৃতি বারবার ভেসে ওঠে। সম্ভবত ১৯৮৭ সালের কথা। সেবার অনাবৃষ্টিতে মানুষের কষ্ট হচ্ছিল।ফসল হচ্ছিল না। তীব্র গরম এবং রোদে মানুষের প্রাণ ওষ্ঠাগত ছিল। মুফতী ওয়াক্কাস সাহেব তখন সরকারকে পরামর্শ দিলেন,দেশব্যাপি “ইস্তেস্কার নামাজ ” আদায় করা হোক। সরকারের অনুমতি নিয়ে তাঁর ধর্ম মন্ত্রনালয় থেকে দেশব্যাপি ” ইস্তেস্কার নামাজ” ( বৃষ্টির জন্য নামাজ পড়া) ব্যবস্হা হয়।

সেই হিসেবে যশোর ঈদগাহ ময়দানে তখন ” ইস্তেস্কার নামাজ” এর ব্যবস্হা হয়েছিল। সেখানে মুফতী ওয়াক্কাস সাহেব উপস্হিত ছিলেন। আরো উপন্হিত ছিলেন, খলিফায়ে মাদানী শায়েখ তাজাম্মুল আলী রহ,।

নামাজের পুর্বে মুফতী ওয়াক্কাস সাহেব দৃপ্তকন্ঠে ঘোষনা করলেন, সকলেই নামাজে শরীক হোন।বিশেষ করে যারা সরকারী অফিস- আদালতে আছেন, তাদেরকেও এই নামাজে শরীক হওয়ার জন্য অনুরোধ করছি। এ কথাও বলেন, যদি সরকারের কাছে কোন জবাবদিহী করতে হয়, আমি করব, তবুও আপনারা নামাজে আসুন।

সেদিন মুফতী ওয়াক্কাস সাহেবের এমন বক্তব্য আপামর জনতার কাছে বেশ ভাল লেগেছিল। সর্বস্তরের মানুষ মন্ত্রীর এমন বক্তব্যে খুশি প্রকাশ করেছিলেন।

মুফতী ওয়াক্কাস সাহেবের রাজনৈতিক জীবন আসলে অনেক বৈচিত্রময়। তবে তাঁর শ্রম,মেধা, এবং নিষ্ঠাবানতার কোন জুড়ি নেই। বিশেষ করে আকাবির আছলাফের রেখে যাওয়া আমানতকে তিনি আঁকড়ে ধরে আছেন আবহমান কাল থেকে।




ইসলামী রাজনীতির পুরোধা। সংগ্রাম- সাধনার মুর্তপ্রতিক। তিনি অবিরাম ভাবে জমিয়তকে শ্রম দিয়েছেন, সেটা ইতিহাস। বিশেষ করে হেফাজত এর আন্দোলনে তাঁর অবদান। তিনি দীর্ঘ সময় কারাবরণ করেছেন। তাঁর সংগঠনের জন্য তিনি জেলে গিয়েছেন।

এই বয়সে এক গাদা মামলা তাঁর মাথায়। বয়স কিন্তু কম নয়। তাঁর পরেও ছুটে চলেছেন। দেশ ও দশের কাজে তিনি পরিশ্রম করে যাচ্ছেন।




যখন ডাক আসে ছুটে যান তিনি। দ্বীন ইসলাম কে সমুন্নত রাখার মানসে তাঁর ছুটোছুটি। আলেম সমাজের যে কোন প্রোগ্রামে তাঁকে প্রথম সারিতে দেখা যায়।

সর্বশেষ, বিগত ৩ অক্টোবরের বেফাকের আমেলার মিটিংএ যেন তিনি মধ্যমণি। তিনি যেন সকলের ভালবাসার মানুষ। তাই তাঁকেই দায়িত্ব দেওয়া হয়, প্রধান নির্বাচন কমিশনারের। আর মুফতী সাহেব যথাযথ উহা পালন করলেন।




অনেক ধন্যবাদ মুফতী ওয়াক্কাস সাহেব। আপনার জন্য আল্লাহর কাছে দুআ করি, আল্লাহ আপনার হায়াতে বরকত দান করুন। আমিন।

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর..
© All rights reserved © 2020 Izharehaq.com
Theme Customized BY Md Maruf Zakir