1. abutalharayhan@gmail.com : Abu Talha Rayhan : Abu Talha Rayhan
  2. asadkanaighat@gmail.com : Asad kg : Asad kg
  3. dulaljanna095@gmail.com : sohidul islam : sohidul islam
  4. abkfaruq@gmail.com : abdul kadir faruk : abdul kadir faruk
  5. junayedshamsi30@gmail.com : Mohammad Junayed Shamsi : Mohammad Junayed Shamsi
  6. sufianhamidi40@gmail.com : Sufian Hamidi : Sufian Hamidi
  7. izharehaque0@gmail.com : ইজহারে হক ডেস্ক: :
  8. rashidahmed25385@gmail.com : Rashid Ahmad : Rashid Ahmad
  9. sharifuddin000000@gmail.com : Sharif Uddin : Sharif Uddin
  10. Yeahyeasohid286026@gmail.com : Yeahyea Sohid : Yeahyea Sohid
  11. zahidnahid68@gmail.com : Hafiz Zahid : Hafiz Zahid
সোমবার, ১৮ জানুয়ারী ২০২১, ১০:০৮ অপরাহ্ন

আহমদ শফি হত্যা মামলা : সত্য এবং ন্যায়ের বিজয় হোক

সৈয়দ মবনু
  • আপডেট টাইম : সোমবার, ২৮ ডিসেম্বর, ২০২০

কোনটা সত্য, কোনটা মিথ্যা, নিজ চোখে না দেখলে কেউ বুকে হাত দিয়ে বলতে পারবে না। আবার যা দেখা যাচ্ছে তা মূল ঘটনা, না এর পিছনে অন্যকিছু, তাও ঘটনার সাথে জড়িত ছাড়া কেউ বুকে হাত দিয়ে বলতে পারবে না। প্রত্যেক ঘটনার যেমন ছোট ছোট পরিকল্পক থাকতে পারে এক বা একাধিক, তেমনি বড় কিংবা মহাবড়ও কেউ থাকতে পারে। অনেক ঘটনা ঘটে যাওয়ার পরপর কিংবা অনেকদিন পর সত্য প্রকাশ পেতে পারে। আবার কিয়ামতের আগে কোনদিন সত্য প্রকাশ নাও হতে পারে।




আল্লামা আহমদ শফি (র.)-এর মৃত্যু হত্যা না অন্য কিছু, তা আমরা কেউ সত্য না মিথ্যা কোনটাই বুকে হাত দিয়ে বলতে পারবো না। তবে আমরা এতটুকু বলতে পারি, তাঁর মৃত্যুকালিন সময় যারাই ভাঙচুর কিংবা অন্য কিছু করেছেন তা খুবই নিন্দনীয় এবং দুঃখজনক।


আমি শুরু থেকেই বলছি, ঘটনার বিচার বিভাগীয় তদন্ত হোক। আমি কারো নাম বলিনি, বলবোও না। আমি সেখানে ছিলাম না এবং এসবের সাথেও জড়িত ছিলাম না, তাই সঠিক ঘটনা বলতে পারবো না। ঘটনার সময় ঘটনাকারীরা যতটুকু লাইভ করেছে আমরা ততটুকু এবং আরও কিছু তথ্য নিয়ে কথা বলতে পারবো। এছাড়া সত্য মিথ্যা কিছু বলতে পারবো না। তাই সঠিক তথ্য জানতে বিচার বিভাগীয় তদন্ত প্রয়োজন।


দীর্ঘদিন পরে এবিষয়ে একটি মামলা হয়েছে। মামলাকারী নাকি দাবী করেছেন আল্লামা আহমদ শফিকে হত্যা করা হয়েছে। এই দাবী প্রথম থেকে কেউ কেউ করে আসছেন। অনেকে তখন বিচার বিভাগীয় তদন্ত দাবী করেছেন। বড় আকারে দাবী প্রথমে এসেছে কওমি মাদরাসা শিক্ষা বোর্ড বেফাকের ভেতরে। তখন বেফাকের পক্ষ থেকে তদন্ত কমিটি গঠন করা হয় মুফতি ওয়াক্কাসকে আহ্বায়ক করে।

মুফতি ওয়াক্কাস সাংবাদিক সম্মেলন করে সরকারীভাবে বিচার বিভাগীয় তদন্তের দাবী করেন। কারণ, মুফতি ওয়াক্কাস জানেন তার কমিটি অকার্যকর হয়ে যাবে যদি সরকারী তদন্ত কমিটি গঠিত না হয়। সরকারের নীতি কিছুটা দ্বিমুখি থাকায় কিংবা সরকারের ধীরে চলু নীতির কারণে বিষয়টি গুরুত্ব পায়নি। ফেসবুক মাধ্যমে জানলাম আল্লামা শফির শ্যালক এবিষয়ে ৩৬জনকে আসামী করে হত্যা মামলা করেছেন।




মামলা মানে কিন্তু সিদ্ধান্ত নয়। মামলা হলো মূলত বাদীর একটা দাবী। এই দাবীর সত্য মিথ্যা নিয়ে এখন চলবে স্বাক্ষী-প্রমাণ। অতঃপর আদালত রায় দেবে সত্য মিথ্যা। আদালতের রায়ে মূল সত্য বেরিয়ে আসতে পারে, নাও আসতে পারে। সেটা স্বাক্ষী-প্রমাণ আর আদালতের সততার উপর নির্ভর করে। আমরা আশা করবো এক্ষেত্রে যেন কোন পক্ষই মিথ্যা ষড়যন্ত্রের শিকার হয়ে মজলুম না হন।


কেউ কেউ বলছেন এ মামলা ভাস্কর্য বিরোধী আন্দোলনকে থামাতে সরকারের ইন্দনে করা হয়েছে, আবার কেউ কেউ বলছেন হাটাজারীর ঘটনাকে আড়াল করতে কৌশলীরা প্রথমে হযরত নবী করিম (স.) এর অবমাননার বিরুদ্ধে আন্দোলনকে মাঠে গরম করেছেন, পরে তারা নিয়ে এসেছেন ভাস্কর্য বিরোধী আন্দোলন। আর এই দুই আন্দোলনের ফাঁকে তারা গঠন করিয়ে নিয়েছেন বেফাক ও হেফাজতের কমিটি। হেফাজতের কমিটিতে তদন্ত দাবীদারদের কাউকে রাখা হয়নি, কিংবা রাখলেও গুরুত্বপূর্ণ পদ দেওয়া হয়নি বলে কেউ কেউ দাবী করছেন।



দাবী কোনটা সত্য কোনটা মিথ্যা তা আল্লাহ ভালো জানেন। আমরা দোয়া করি সত্য এবং ন্যায়ের বিজয় হোক।

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..
© All rights reserved © 2020 Izharehaq.com
Theme Customized BY Md Maruf Zakir