1. abutalha6256@gmail.com : abdul kadir : abdul kadir
  2. abutalha625616@gmail.com : abu talha : abu talha
  3. asadkanaighat@gmail.com : Asad Ahmed : Asad Ahmed
  4. izharehaq24@gmail.com : mzakir :
বুধবার, ২৮ জুলাই ২০২১, ০৩:০১ পূর্বাহ্ন

এমন বেয়াদবির ধারা বন্ধ হওয়া উচিৎ

সৈয়দ মবনু
  • প্রকাশটাইম: বুধবার, ৩১ মার্চ, ২০২১

হাটাজারীতে লাশ দেখতে গেলে আল্লামা জুনায়েদ বাবুনগরীর সাথে তাঁর ছাত্ররা যা ঘটিয়েছে তা ছিলো হযরতের পাওনা, অবশ্যই বেয়াদবী। এই কর্জ হযরত দিয়েছিলেন তাঁর উস্তাদে মুহতারাম আল্লামা আহমদ শফি (র.)-কে।



আমি তখন বারবার চিল্লিয়ে বলেছি আপনারা এমনটি হতে দিয়েন না, নতুবা একদিন আফসোস করতে হবে। কিন্তু কে শোনে কার কথা!
এ সম্পর্কিত একটা কাহিনী বলি;
ছেলে তাঁর বাবার উপর রাগাম্বিত হয়ে পাহাড়ের চূড়া থেকে ফেলার উদ্দেশ্যে বেঁধে নিয়ে যায়। বাবা ছেলের দিকে চেয়ে হাসে। ছেলে জানতে চায়, এই বৃদ্ধ একটু পরে তোমাকে পাহাড়ের চূড়া থেকে ফেলে দেবো জেনেও হাসছো কেনো? বাবা বলে, আমি যতটুকু জানি আমার দাদা তার বাবাকে এভাবে ফেলে ছিল, আমার বাবাও তার বাবাকে এভাবে ফেলেছে। আমিও ফেলেছি আমার বাবাকে।




এখন পুত্রধন তুমি ফেলছো আমাকে। আমি হাসছি এজন্য যে, একদিন এভাবে তোমাকেও তোমার সন্তানেরা ফেলবে। এভাবে তাদের সন্তানেরা তাদেরকে। বাবার কথা শোনে ছেলের চেতন জেগে উঠে। সে তাঁর বাবাকে ছেড়ে দিয়ে আল্লাহর কাছে তাওবাহ করে।




আল্লামা আহমদ শফির সাথে তখন কি ঘটেছিলো হাটাজারীতে তা এখানে নতুন করে বলবো না। তবে আনেওয়ালা প্রজন্ম বিষয়টি থেকে শিক্ষা নিতে পারে সেজন্য – সময়ের মহানায়ক আল্লামা আহমদ শফি (র.) নামক গ্রন্থে লিখে রেখেছি।


বেয়াদবীর এই ধারা বন্ধ করুন। যারা অতীতে করেছেন তারা তাওবাহ করুন। নতুবা নিজের জন্য এমন পরিস্থিতির অপেক্ষা করুন।

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর..
copyright 2020:
Theme Customized BY MD MARUF ZAKIR