1. abutalha6256@gmail.com : abdul kadir : abdul kadir
  2. abutalha625616@gmail.com : abu talha : abu talha
  3. asadkanaighat@gmail.com : Asad Ahmed : Asad Ahmed
  4. izharehaq24@gmail.com : mzakir :
বৃহস্পতিবার, ২৪ জুন ২০২১, ০৯:০৯ অপরাহ্ন

বিষাদ

মাশহুদ আল হাবিব
  • প্রকাশটাইম: সোমবার, ৭ জুন, ২০২১

বৈশ্বিক মহামারী ‘কোভিড ১৯’ -র দ্বিতীয় থাবায় পৃথিবী লণ্ডভণ্ড। আমাদের দেশও অনেকটা পর্যুদস্ত । তবে একথা সত্য, করোনার প্রকোপে দেশ এবং দেশের মানুষ যতটা নাকাল কিংবা ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে, তার চে’ বেশি সরকারে নীতিহীন পরিচালনায় নাকাল ও ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে দেশের জনমানব। মিডনাইট সরকারের মর্জিমাফিক ‘লকডাউন’ তিলেতিলে মানুষকে ঠেলে দিচ্ছে মৃত্যুর দোয়ারে।জনগণ অতিশয় অশান্তি ও অস্থিরতায় পার করছে অধুনা দিনকাল। চারিদিকে অভাবের ঘোর অন্ধকার। অসহায় মানবের নীরব আর্ত চিৎকার।দুরাশার দোলাচলে দোল খাচ্ছে প্রতিটি মধ্যবিত্ত পরিবার।আর যারা নিম্নবিত্ত কিংবা ঘরহারা, অন্নহীন ; তারাতো বরাবরের মতো সীমাহীন বিপাকে।


প্রলয়ঙ্করী ‘করোনার’ প্রাদুর্ভাবে পৃথিবী যতটা ক্ষতির সম্মুখীন হয়েছে, হিসাব কষলে দেখা যায় আমাদের দেশের ক্ষতির পরিমাণ সর্বনিম্ন স্তরের।নিঃসন্দেহে এটা আমাদের ওপর মালিকের বিশেষ মেহেরবানি।কিন্তু দেশের জালিম শাসকের অনৈতিকতায় তেতো আমাদের দিল-মগজ। লকডাউনের খাতিরে সরকার কী হাসিল করতে চাচ্ছে, তা জনগণের নখদর্পণে। এসব আর না-ই বললাম আমি।মহামারীর জের ধরে খামাখা লকডাউনের দোহাই দিয়ে ক্রমশ জাতিকে শেষ করা হচ্ছে।পৌঁছে দেওয়া হচ্ছে সর্বনাশের চূড়ান্ত সীমানায়।সকলেই জানি ‘শিক্ষাই জাতির মেরুদণ্ড’। বছর দুয়েক থেকে জাতিকে শিক্ষা থেকে সরিয়ে গড়ে তোলা হচ্ছে মেরুদণ্ডহীন এক জাতি।তৈরি করা হচ্ছে মূর্খ, অকর্মণ্য, কর্মক্ষম ও অলস এক প্রজন্ম।

২০২০ সনে মহামারী করোনার কারণে বছরের শেষভাগে আকস্মিক মাদরাসা ছুটির ঘোষণা হয়।অনাকাঙ্ক্ষিত এই ছুটিতে বিভিন্ন সমস্যায় পড়ে লাখো শিক্ষার্থী। সারাবছর পড়ে শেষে ফলশূণ্য হাতে ঘরে ফিরতে হয় আমাদের। এ যেন— বিলের সম্পূর্ণ পানি সেঁচে,মাছ ধরার সময় বাঁধ ছেড়ে দেওয়ার নামান্তর।বার্ষিক পরীক্ষাটাও দিতে পারি নি। বাধ্য সন্তানের মতো একবুক হতাশা নিয়ে বাড়ি চলে আসি।সেই থেকে দীর্ঘ পাঁচমাস আমাদের বঞ্চিত রাখা হয় ইলমের পাঠদান থেকে।

এবারও তার ব্যতিক্রম নয়।তবে কোনোরকম পরীক্ষাটা দিতে পেরেছি। তাও কত বলেকয়ে দিন চেয়ে।বছরের একতৃতীয়াংশ চলে যাওয়ার পর জোরজবরদস্তি করে মাদরাসা খুললেও -বছরের গোড়ার দিকে হানা দেয় সরকারের লক্ষ হাসিলের প্রথম ধাপ—’লকডাউন।’ ক্ষমতা তাদের হাতে বলেই সফল হয় এই মন্ত্র সাধনে।অযথা করোনার অজুহাতে লকডাউ ঘোষণা করে রাজনীতির উচ্ছিষ্ট খেয়ে ভুড়ি মোটা করা মন্ত্রীপরিষদ। যা মাদরাসা বন্ধের এক নিশ্ছিদ্র পায়তারা। ‘লকডাউন’ ঘোষণা হলে আমাদের বোর্ড পরীক্ষার রুটিনেও অযাচিত পরিবর্তন সাধিত হয়।যার ফলে অপূরণীয় ক্ষতি হয় হাজারো শিক্ষার্থীর।অনেকের ভালো রেজাল্ট হওয়ার কথা থাকলেও এই আকস্মিক রুটিন পরিবর্তনে তেমন ভালো হয় নি। বিশেষত মিশকাত ও দাওরা হাদীসের শিক্ষার্থীদের ক্ষতি হয়েছে।যা কেটে উঠা অনেকটা অসম্ভবপ্রায়। পিঠে অতিরিক্ত বোঝা নিয়ে অতিকষ্টে পরীক্ষা দিতে হয় আমাদেরও।

পরীক্ষা শেষে গেলবারের মতোই হতাশা বুকে বাড়ি ফিরি।অনির্দিষ্টভাবে মাদরাসা ছুটি ঘোষণা হয়।সকলের চোখেমুখে হতাশার ভারী ছাপ। কবে মাদরাসা খুলবে,কখন আবার জমায়েত হব ইলমের মজমায়—এমন শত নীরব প্রশ্ন উকি দিচ্ছে মনে।দীর্ঘ দু’মাস ধরে রুদ্ধ মাদারাসার দোয়ার।একদিকে ক্ষমতার অপব্যবহারে মনের সাধ মিটিয়ে দেদারসে বন্দী করা হচ্ছে দেশের মান্যবর আলেম সমাজকে। ওপরদিকে দীর্ঘদিন ধরে আমাদেরকে নববী ইলমচর্চা থেকে রাখা হচ্ছে দূর বহুদূরে।সত্যিই আজ আমার মতো লাখো কওমিয়ানদের হৃদয় ব্যথাতুর। বিষাদে বিষাদিত মন।বেকারত্বের বিষাক্ত ছোবলে আহত হচ্ছি ক্রমান্বয়ে।বিষিয়ে তুলছে দেহমন।আমাদের জীবনে আবারও এলো বিষাদের দিন। অনাকাঙ্ক্ষিতভাবে ঘটলো—বিষাদের পুনরাবৃত্তি।

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর..
copyright 2020:
Theme Customized BY MD MARUF ZAKIR